Job Preparation সংস্কৃতি

Job Preparation
Subject: Banagladesh
Topic: সংস্কৃতি

  • বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত  আমার সোনার বাংলা প্রথম ১০ চরন।                           
  • আমার সোনার বাংলা কবিতাটিতে টি চরণ আছে ২৫টি।                             
  • আমার সোনার বাংলা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গ্রন্থের অর্ন্তগত গীতবিতান এর অর্ন্তগত।                                   
  • আমার সোনার বাংলা-র সুরকার কে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।                               
  • আমার সোনার বাংলা প্রথম প্রকাশিত হয় পত্রিকায় বঙ্গদর্শন।                                   
  • আমার সোনার বাংলা প্রথম প্রকাশিত হয় সালে ১৯০৫ সালে।                                  
  • বাংলাদেশের রণ সংগীত  চল চল চল চল কবিতার প্রথম দুই স্তবক।                          
  • বাংলাদেশের রণ সঙ্গীতের গীতিকার কে কাজী নজরুল ইসলাম।                                
  • উৎসব অনুষ্ঠানে বাজানো হয় রণ সঙ্গীতের  চরণ প্রথম ২১ চরন।                              
  • বাংলাদেশের রণ সঙ্গীতের সুরকার কে-  কাজী নজরুল ইসলাম।                               
  • বাংলাদেশের রণ সংগীত চল্‌ চল্‌ চল্‌ কাব্যর অর্ন্তগত সন্ধ্যা কাব্য।                             
  • রণ সঙ্গীত বাংলা  সালে প্রথম প্রকাশিত হয় ১৩৩৫ সালে।                          
  • রণ সঙ্গীত পত্রিকায় প্রকাশিত হয় শিখায় ।                                
  • বাংলাদেশের ক্রীড়া সংগীত  সেলিমা রহমান রচিত বাংলাদেশের দুরন্ত সন্তান আমরা দুর্দম দুর্জয় নামক গানটি।
  • বাংলা সন   চালু করেন-সম্রাট আকবর, ১৫৫৬ ইং সন।
  • ‘গম্ভীরা’ বাংলাদেশের কোন অঞ্চলের গান- চাপাইনবাবগঞ্জ।    
  • ‘চটকা’ বাংলাদেশের কোন অঞ্চলের গান-রংপুর অঞ্চলের।
  • ‘ভাটিয়ালী’ বাংলাদেশের কোন অঞ্চলের গান- ময়মনসিংহ।
  • ঢাকা ময়মনসিংহ অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী নৃত্য গীতের নাম -জারি।
  • ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো’ গানটির গীতিকার – আবদুল গফ্‌ফার চৌধুরী।
  • ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো’ গানটির প্রথম সুরকার -আবদুল লতিফ।
  • ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো’ গানটির বর্তমান সুরকার – আলতাফ মাহমুদ।
  • ‘মোরা একটি ফুল বাঁচাবো বলে যুদ্ধ করি’ গানটির গীতিকার -গোবিন্দ্র হাওলাদার।
  • ‘মোরা একটি ফুল বাঁচাবো বলে যুদ্ধ করি’ গানটির সুরকার ও শিল্পী -আপেল মাহমুদ।
  • বাংলাদশের একমাত্র লোকশিল্প জাদুঘরটি অবস্থিত-  সোনারগাঁয়ে।
  • বাংলাদেশের প্রথম যাদুঘর –  বরেন্দ্র যাদুঘর, রাজশাহী ১০ ডিসেম্বর, ১৯১০।
  • ঢাকা যাদুঘরপ্রতিষ্ঠিত হয়-০৭ আগষ্ট, ১৯১৩ সালে।
  • ঢাকা যাদুঘর  জাতীয় যাদুঘরে রূপান্তরিত হয়- ১৭ নভেম্বর, ১৯৮৩।
  • বাংলাদেশের জাতিভিত্ত্বিক বা নৃ-তাত্ত্বিক যাদুঘর কোথায়- চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে।
  • মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর অবস্থিত- ঢাকার সেগুন বাগিচায়, ২২ মার্চ, ১৯৯৬।
  • বিজ্ঞান যাদুঘরটি অবস্থিত- ঢাকার আগারগাঁয়ে।
  • মহাস্থানগড় যাদুঘর অবস্থিত- বগুড়া।
  • জয়নুল আর্ট গ্যালারী অবস্থিত- ময়মনসিংহ।
  • বাংলাদেশের একমাত্র প্রানী যাদুঘর অবস্থিত- মীরপুর, ঢাকা। (চিড়িয়াখানার মধ্যে)
  • ‘দুর্ভিক্ষের উপর ম্যাডোনা ৪৩’ ছবিটি  একেঁছেন- শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন
  • প্রখ্যাত ‘তিন কন্যা’ছবিটি  একেঁছেন-কামরুল হাসান।
  • বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন সঙ্গীতজ্ঞ  ছিলেন-ওস্তাদ আয়াত আলী খান।
  • বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন নৃত্যশিল্পী  ছিলেন-বুলবুল চৌধুরী।
  • বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন পল্লীগীতি শিল্পী  ছিলেন- আব্বাস উদ্দিন ও আব্দুল আলীম।
  • বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন যাদুকর -জুয়েল আইচ।
  • বাংলাদেশের বিখ্যাত ভাস্কর – শামীম সিকদার।
  • বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ কাঠ খোদাই শিল্পী  -অলক রায়।
  • বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ কাটুনিস্ট  -রফিকুন্নবী (রনবী)।
  • বাংলাদেশের সুর সম্রাট কা বলে- ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ।
  • বাংলা একাডেমী  প্রতিষ্ঠিত হয়-০৩ ডিসেম্বর, ১৯৫৫।
  • পূর্বে বাংলা একাডেমীর নাম  ছিল-বর্ধমান হাউজ।
  • বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী  প্রতিষ্ঠিত হয়-১৯৭৪।
  • শিশু একাডেমী  প্রতিষ্ঠিত হয়- ১৯৭৭ সাল।    বাংলাভাষার আদি নিদর্শন – চর্যাপদ।
  • বাংলাদেশের ‘বাউল সম্রাট বলা হয়-লালন ফর।
  • বাংলা মুদ্রাক্ষরের জনক –   চার্লস উইলনস্
  • সর্বপ্রথম চলচ্চিত্র ,নির্মাণ করেন- লুমিয়ার ব্রাদার (যুক্তরাষ্ট্র), ১৮৯৫ সাল।
  • উপমহাদেশের চলচ্চিত্রের জনক -হীরালাল সেন।
  • বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জনক – আবদুল জব্বার খান।
  • হীরালাল সেনের নির্মিত চলচ্চিত্রটি প্রথম  প্রদর্শিত হয়-৪ এপ্রিল, ১৮৯৮ সালে কলিকাতার ক্লাসিক থিয়েটারে।
  • উপমহাদেশের প্রথম ও বাংলায় সবাক চলচ্চিত্র – জামাই ষষ্ঠী, ১৯৩১ সালে।
  • উপহমাদেশের প্রথম নির্বাক চলচ্চিত্রের নাম -আলী বাবা ও চল্লিশ চোর।
  • বাংলাদেশের প্রথম চলচ্চিত্র -মুখ ও মুখোশ, ৩ আগষ্ট, ১৯৫৬।
  • মুখ ও মুখোশ চলচ্চিত্রের পরিচালক  ছিলেন-আবদুল জব্বার খান।
  • অস্কার পুরস্কার প্রাপ্ত একমাত্র বাংলা চলচ্চিত্র -পথের পাঁচালী, ১৯৯১ সাল।
  • পথের পাঁচালী চলচ্চিত্রটির পরিচালক  ছিলেন-সত্যজিৎ  রায়।
  • পথের পাঁচালী চলচ্চিত্রটির প্রথম প্রদর্শিত হয়-১৯৫৫ সালে।

 

 

  • বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক -জহির রায়হান।
  • জহির রায়হান পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র – কখনো আসেনি।
  • জহির রায়হান পরিচালিত বিখ্যাত চলচ্চিত্রগুলো হল-‘কাঁচের দেয়াল, ‘জীবন থেকে নেয়া’, ‘Stop Genocide’
  • বাংলাদেশের প্রথম প্রামান্য চিত্রের নাম – ‘স্টপ জেনোসাইড’।
  • ‘চিত্রা নদীর পাড়ে’ও ‘লালসালু’ চলচ্চিত্রের নির্মাতা -তানভীর মোকাম্মেল।
  • ‘মুক্তির গান, ‘অগ্রযাত্রাও ‘মাটির ময়না’ চলচ্চিত্রের নির্মাতা – তারেক মাসুদ।
  • ‘চাকা ও ‘আগামী’এর নির্মাতা -মোরশেদুল ইসলাম।
  • ‘পদ্মা নদীর মাঝি’ চলচ্চিত্রটির নির্মাতা – গৌতম ঘোষ।
  • ‘লিবারেশন ফাইটার্স’ চলচ্চিত্রটির পরিচালক – আলমগীর কবির।
  • কোন প্রামান্য চিত্রটি ইন্টারন্যাশনাল এ্যামি অ্যাওয়ার্ড পুরস্কার লাভ করে- ‘আমরাও পারি (এটিএন বাংলা নির্মিত)।
  • বাংলা সিনেমার কোন অভিনেত্রী ‘ডক্টরেট’ডিগ্রী লাভ করেছেন-ববিতা।
  • বাংলা সিনেমার প্রথম অভিনেত্রী -পূর্নিমা সেনগুপ্তা।
  • বাংলা সিনেমার প্রথম মুসলিম অভিনেত্রী -বনানী চৌধুরী।
  • বনানী চৌধুরী অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র – বিশ বছর আগে
  • এফডিসি  প্রতিষ্ঠিত হয়-১৯৫৮ সালে।
  • এফডিসিতে নির্মিত প্রথম ছবি – আছিয়া।
  • এফডিসির প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি – আকাশ ও মাটি

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.